শনিবার, মার্চ ২, ২০২৪

তেতুলিয়ায় বাল্য বিয়ের দায়ে কনের পিতা ইউপি সদস্যকে ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ড

আপডেট:

পঞ্চগড় জেলা প্রতিনিধি খাদেমুল ইসলাম

পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলায় নাবালিকা শিশু কন্যার বাল্যবিবাহ প্রদানের প্রস্তুতি গ্রহণ করায় পিতা ইউপি সদস্য আজাহারুল ইসলাম (৪৫) কে
১০,০০০/- (দশ হাজার) টাকা অর্থদন্ড প্রদান এবং মুচলেকা গ্রহণ করা হয়েছে।
বৃস্পতিবার (২৩ নভেম্বর ) বিকালে উপজেলার তিরনই হাট ইউনিয়নের বকশীপাড়া গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।

বিজ্ঞাপন

এসময় উপজেলা সহকারী কমিশনার
(ভুমি ) নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মাহবুবুল হাসান।

দণ্ডপ্রাপ্ত পিতা ইউপি সদস্য হলেন
উপজেলার তিরনই হাট
ইউনিয়নের বকশীপাড়া গ্রামের বাসিন্দা মোঃ বসির আলমের ছেলে আজাহারুল ইসলাম।
ভ্রাম্যমান আদালত সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে শালবাহান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনীর শিক্ষা র্থী ও
বকশী গ্রামের ইউপি সদস্য আজাহারুল ইসলাম তার
নাবালিকা অপ্রাপ্ত বয়স্ক (১৪) কন্যার
সাথে দিনাজপুর জেলা, দশমাইল এলাকার
বরযাত্রা তখনো আসেনি বরের নাম মিজান পিতা- আব্দুস সাত্তার, সহিত
পারিবারিক ভাবে জমকালো আয়োজনে বিয়ে হচ্ছিলো । এর মাঝে বাল্যবিয়ের খবর পেয়ে তেঁতুলিয়া উপজেলা প্রশাসন থানা পুলিশ নিয়ে অভিযান পরিচালনা করে। ভ্রাম্যমান আদালত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে শিশুর বিবাহ প্রস্তুতি গ্রহন এবং অভিভাবক বিবাহ আয়োজনে জড়িত কনের বাবা ইউপি সদস্য আজাহার ইসলামকে ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ড এবং মুচলেকা গ্রহণ করা হয়।
অপ্রাপ্ত বয়স পাওয়ায় বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন, ২০১৭ এর ৮ ও
১৯৩০ এর ২৬০ (১) ধারায় অর্থদন্ড প্রদান করেন। এ বিষয়ে সহকারী কমিশনার ভুমি মাহবুবুল হাসান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, সরকারি আইন অনুযায়ী মেয়েদের ১৮ বয়সের নিচে বিয়ে দেয়া দণ্ডনীয় অপরাধ। বাল্যবিয়ের খবর পেয়ে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় বাল্যবিবাহ নিরোধ আইনে কনের বাবাকে অর্থদন্ড নির্দেশ প্রদান করে মচলেকা প্রদান হয়।ভবিষ্যতে বাল্যবিবাহ নিরোধ করতে এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি আরো জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:

সর্বাধিক পঠিত