শুক্রবার, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২৪

নয় বছরের শিশু অপহরণ পরে মুক্তিপণের বিনিময় উদ্ধার

আপডেট:

মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন স্টাফ রিপোর্টার

 

বিজ্ঞাপন

গত ইংরেজি ১৮-১১ ২০২৩ ইংরেজি তারিখে বায়তুল রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মাদ্রাসা সেকশন ৭ বাসা নম্বর ৩০০ মাদ্রাসা ছুটি হবার পরে ছেলেটি তার বাবা মার জন্য অপেক্ষা করতে ছিল। তাদের বাসার একই ফ্লাটে অপহরণকারী থাকতো ওর নাম উজ্জ্বল। শিশুটি বাসায় আসার জন্য অপেক্ষা করছিল তার বাবা মার জন্য এই সময় উজ্জ্বল পুরো নাম মোঃ সোহেল রানা উজ্জল। সে বলে ইয়াসিন তুই বাসায় যাবা না সে বলে না বাবা আসলে আমি যাব। তখন অপহরণকারীতাকে বলে তোমার বাবা-মা কেউ বাসায় নেই আমাকে পাঠাইয়াছে চলো তোমাকে নিয়ে বাসায় দিয়ে আসি। তখন ছেলেটি কারণ একই ফ্ল্যাটে থাকে যখন রিকশায় ওঠে তারপরে সে আর কিছু বলতে পারেনা।

এরপর তার বাবা-মা বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুঁজি করার পরে। তাদের ফোনে উজ্জ্বল নামে অপহরণকারীবলে তোমার ছেলেকে যদি ফিরে পেতে চাও তাহলে দুই লক্ষ টাকা পাঠাও। ছেলেটির বাবা মোঃ নিজাম। মিরপুর ৭ রোড নম্বর ৫ নম্বর ৯৯৯০ দ্বিতীয় তলায় অবস্থান করত তার পাশের ফ্লাটে এই অপহরণ করে থাকতো। পরিশেষে তার বাবা পল্লবী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্তকারী অফিসার । এস আই সদানন্দ। পল্লবী থানার সাথে সাথে। পল্লবী জনের ডিবির এডিসি জনাব রাহাত হাসান ও সিনিয়র ইন্সপেক্টর মুরাদুজ্জামান সহ তাদের টিম দিনরাত ২৪ ঘন্টা পুরো ১৩ দিন পর্যন্ত ছেলেটিকে উদ্ধার করার জন্য চেষ্টা চালায় কিন্তু অপহরণকারী এতই চালাক মোবাইল বন্ধ রাখে আবার দশ

বিজ্ঞাপন

মিনিটের জন্য খুলে যখনই তার লোকেশন ট্র্যাক করা হয় ওখানে গিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি। এভাবে চলার পর তার বাবা তখন নগদ ও বিকাশ নাম্বারে এক লক্ষ বিশ হাজার টাকা প্রদান করেন। তারপর ফোন করে বলে তোর ছেলেকে সিএনজি করে মিরপুর সিনেমা হলের সামনে ইসলামী হাসপাতালের সামনে রেখে আসা হয়েছে।

ছেলেটিকে তার বাবা ফিরে পেয়েছে ৩০-১১-২০২৩ পরবর্তীতে তার বাবাকে তার ছেলেকে নিয়ে আসে। তখন ওই সি এন জি চাল ক কেআটক করে গোয়েন্দা বিভাগ। তাকে গোয়েন্দা বিভাগ মিন্টু রোড অফিসেনিয়ে গিয়ে বিভিন্নভাবে

জিজ্ঞাসাবাদে সে বলে আমি ভাড়া পেয়েছি আমাকে বলেছে শিশুটিকে নিয়েএবং বলেছে পল্লবী মিরপুর হলের সামনে নামিয়ে দিয়ে আসবা। পরে গোয়েন্দা বিভাগ বিভিন্নভাবে জিজ্ঞাসাবাদে তার নিকট থেকে কোন তথ্য না পেয়ে পরবর্তীতে তাকে ছেড়ে দেয়। অপহরণকারী এতই জঘন্য যে ছেলেটিকে ১৩ দিনের ভিতরে মাত্র দুবেলা তাকে খেতে দিয়েছে এবং অমানুষিকটর্চারিং করেছে। আমি পল্লবী থানার তদন্ত অফিসারএবং গোয়েন্দা বিভাগ পল্লবী জোনের সিনিয়র ইন্সপেক্টর মুরাদুজ্জামান কপিসাহেবের সাথে আলাপ করেছে তিনি বলেছেন অনতিবিলম্বে অপহরণকারী গ্রেফতার হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:

সর্বাধিক পঠিত