শুক্রবার, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২৪

আপডেট:

মোঃ তপু শেখ গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

 

বিজ্ঞাপন

অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়িয়ে এক দৃষ্টান্তর মূলক কর্মকাণ্ড প্রতিস্থাপন করেছেন মোঃ আজিম শেখ নামে এক যুবক।আজিম শেখ গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার ঘোষেরচর এলাকার বাসিন্দা এবং সদর উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক।
প্রতি বছরের মতো তিনি এবারেও উপজেলার বিভিন্ন ওয়ার্ডের অসহায় ছিন্নমূল গরীব সুবিধা বঞ্চিত মানুষদের নগদ অর্থ সহায়তা উপহার দিয়ে শীতের আনন্দকে ভাগাভাগি করে নিয়েছেন।

জানা যায়, ছোটবেলা থেকেই আজিম সমাজ ও মানুষের কল্যাণে জড়িত। প্রায় ৭-৮ বছর ধরে পুরোপুরিভাবে মানুষের কল্যাণে নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছেন।গোপালগঞ্জে সমাজসেবা মূলক এমন কোনো কাজ নেই যেখানে আজিমের অংশগ্রহণ নেই।

বিজ্ঞাপন

অসহায় মানুষের বাড়িতে খাবার পৌঁছে দেওয়া, রোগীকে রক্ত দেওয়া, অসহায় মানুষের মাঝে ঈদ উপহার, মসজিদ নির্মাণে সহযোগিতা, বিভিন্ন স্থানে-প্রতিষ্ঠানে গাছ লাগানো, গরিবের মাঝে কম্বল ও মাংস বিতরণ, দুস্থ মানুষদের সঙ্গে নিয়ে চিকিৎসা করানো, ঘর নির্মাণ, যুবকদের ক্রীড়া সামগ্রী বিতরণ, প্রতিবন্ধী-মানসিক রোগীদের সঙ্গে নিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বই প্রদান, পাখিদের নীড়ের ব্যবস্থা, পশু-পাখিদের খাবার দেওয়া।

হারানো শিশুদের উদ্ধারে সহায়তা, পঙ্গুদের মাঝে হুইল চেয়ার বিতরণসহ বিভিন্ন ধরনের কাজে তার অংশগ্রহণের দৃষ্টান্ত রয়েছে। আর এ সবকিছুই তার নিজ অর্থায়নে ও নিজ উদ্যোগে করা।গোপালগঞ্জ , বেশ কয়েকটি সামাজিক সংগঠনে রয়েছে তার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা।

মোঃ আজিম শেখ বলেন, গোপালগঞ্জ সহ ও আশপাশের এলাকায় অসহায় অবহেলিত মানুষের অনেক কিছুই যেন নির্ভর করে আমার ওপর। যেমন ওষুধ, চাল, শিক্ষা খরচ, কাপড় অর্থাৎ মৌলিক চাহিদাগুলো। যা প্রতিদিন সাধ্যমতো সাহায্য সহযোগিতা করে থাকি।

তিনি আরও বলেন, আমার লক্ষ্য মানবতার কল্যাণে কাজ করা। কোনো দলমত, পদ-পদবীতে আমার লোভ নেই। রাজনীতি কিংবা জনপ্রতিনিধি হওয়ারও কোনো ইচ্ছা নেই। আমি মানুষকে দেখানোর জন্যও এসব করি না। ইচ্ছা শক্তি থাকলে আর মন মানসিকতা ভালো থাকলে যার যার স্থান থেকেই সমাজ ও অসহায় মানুষের জন্য অনেক কিছুই করা সম্ভব। আমি যা করে থাকি তা আমার নিজের উদ্যোগে ও নিজের অর্থায়নে। তবে আমার পরিবার আমাকে এ কাজে সাহায্য ও প্রেরণা দিয়ে থাকে।

তিনি বলেন, অনেক সময় এই কাজ করতে গিয়ে জীবনের ঝুঁকি এসেছে। তবু পিছু ফিরিনি। টাকা পয়সা বড় কথা নয়। শীতের আনন্দকে সবার মাঝে ভাগ করে দিয়ে সমাজের অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়াতে পেরেছি এটাই আমার কাছে বড় পাওয়া। অসহায়দের পাশে দাঁড়ালে মহান আল্লাহও খুশি হন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:

সর্বাধিক পঠিত