শুক্রবার, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২৪

অনুমোদন বিহীন ট্রলার গাড়ি, নসিমন গাড়ি চলছে পুলিশের সহায়তায়, গোপালগঞ্জে প্রাণ হারালো যুবলীগ নেতা।

আপডেট:

মোঃ তপু শেখ গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি

 

বিজ্ঞাপন

গতকাল শনিবার রা৩ আনুমানিক ৯.৩০ সময় গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়া উপজেলার মালেক বাজার মোড়ে হলার ট্রলি গাড়ির চাপায় প্রাণ গেল গোপালগঞ্জ জেলা যুবলীগ নেতা সদর উপজেলার ব্যাংকপাড়া পদ্ম পুকুর পাড়ের সিরাজ সিকদারের ছোট ছেলে রফিকুল হাসান রাজ সিকদার (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্নাইলাহি রাজিউন)। নিহত রাজ সিকদার দলীয় নেতাদের সাথে দেখা করতে যাওয়ার সময় এ সড়ক দুর্ঘটনার শিকার হন তিনি।
প্রায়ই শোনা যায় নসিমন গাড়ি, হলার চালিত ট্রলি গাড়ি, করিমন গাড়িতে অ্যাকসিডেন্ট করে মানুষ মারা গেছে। ঘাতক এই গাড়ির নাই কোন লাইসেন্স নাই কোন ব্রেক সীমারেখা, এই গাড়িগুলোর ড্রইভারদের কোন লেইসেন্স নাই , এই গড়ির মালিকেরা প্রশাসনের হাত ধারে ঘুষের বিনিময়ে রাস্তায় বেপরোয়া ভাবে চলাচল করে গোপালগঞ্জ জেলার বিভিন্ন স্থানে। এছাড়া গোপালগঞ্জে চলছে মাহিন্দ্রা ট্রলি আইসার ট্রলার সহ বিভিন্ন ধরনের কোম্পানির গাড়ি রাস্তায় চলছে যা চলার কথা, জমিতে বিলে হাওড়ে। এদের কারণে গোপালগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনা বেড়ে গেছে এদের দ্রুত বন্ধ করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।
জানা যায়, গাড়ির ড্রাইভাররা রাস্তায় চলাচলের সময় ট্র্যাফিক সার্জেন্ট ও ট্রাফিকদের ঘুষ প্রদানের মাধ্যমে রাস্তায় চলে। অনেক মালিকেরা ট্র্যাফিক বিভাগের লোকজনদের সাথে মাস চুক্তি করে রাস্তায় দেধারছে গাড়ি চালিয়ে যাচ্ছে। আই স্যালো মেশিন চালিত গাড়ি সাধারণত তৈরি হয় ওয়ার্কসপে। যে যার ইচ্ছামতো তৈরি করে রাস্তায় নামিয়ে দিচ্ছে। সরকারের অনুমতি ছাড়াই। সরকারের বিধি লঙ্ঘন করে সরকারি পুলিশ বিভাগের ট্র্যাফিক বিভাগ ঘুষের বিনিময়ে এই সকল অবৈধ গাড়ি চালানোর অনুমতি দিচ্ছে। রাস্তায় এই সকল অনুমোদন বিহীন অবৈধ গাড়ি আতি দ্রুত বন্ধ করার আহবান জানাচ্ছি, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে এ ব্যপারে নজরদারি করার প্রয়োজন মনে করছে গোপালগঞ্জবাসী ও নিহতের পরিবার।এব্যপারে গোপালগঞ্জ জেলায় কর্মরত ট্র্যাফিক সার্জেন্ট মো. কামরল ইসলামের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, মাহিন্দ্র গাড়ি ট্রলি গাড়ি নসিমন গাড়ি রাস্তায় চলার কোন অনুমতি নাই। আমরা এ ব্যপারে ০ টালারেন্স দিয়েছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সংশ্লিষ্ট সংবাদ:

সর্বাধিক পঠিত